Logo
শিরোনাম
নির্মান প্রকৌশল শ্রমিক ইউনিয়নে টেলিভিশন প্রদান। আবারও সাবেক মেয়র মুক্তির জামিন ১৪ দফায় নামঞ্জুর মেয়রপ্রার্থী লিপুর পক্ষে ঘাটাইলে অটোরিকশা চালকদের শোডাউন। বানারীপাড়ায় অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ। পরিষদের কাজে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুমোদন নেবেন ইউএনও। ঘাটাইল রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস পরিদর্শনে কাজী আরজু। সন্ধানপুর ইউনিয়নে নবজাতক শিশুদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন সাবেক এমপি মরহুম ডাঃ মতিউর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকী পালন রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস পরিদর্শনে ওবায়দুল হক নাসির।

একই মঞ্চে শোকদিবস পালন করলেন আনেহলা আ’লীগের সভাপতি এবং বিএনপির দুই উপদেষ্টা!

রাফসান সাইফ সন্ধিঃ গত ১৫ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬ তম শাহাদাত বার্ষিকীতে ঘাটাইল উপজেলার ৫ নং আনেহলা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে (একাশী গ্রামে) ঘাটাইল উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজুর আয়োজনে দোয়া মাহফিল, গনভোজ এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানের ব্যানারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা, ঘাটাইল আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আতাউর রহমান খান, সাবেক সংসদ আমানুর রহমান খান রানা এবং ঘাটাইল উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজুর ছবি থাকলেও নেই জেলা বা উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের ছবি। বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ে এই শোক দিবসের প্রোগ্রাম করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে কাজী আরজুর বিরুদ্ধে। উক্ত প্রোগ্রামে একই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন আনেহলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তালুকদার মোঃ শাজাহান।

এ বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা জানান, ১৫ আগস্ট অনুষ্ঠানে ৫ নং আনেহলা ইউনিয়ন বিএনপির দুইজন উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম (খোকা) ও আলী আকবর সিদ্দিকী এবং অস্ত্র ও মাদকসহ একাধিক মামলার আসামি জাকিরুল ইসলাম (আরিফ) উপস্থিত ছিলেন। একই মঞ্চে বক্তব্য দেন ৫ নং আনেহলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার মোঃ শাজাহান।

এ বিষয়ে ৫ নং আনেহলা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি শিবলু শিকদার বলেন, “ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হয়ে বিএনপির নেতৃবৃন্দ নিয়ে কিভাবে শোকসভা করলো তা আমার বোধগম্য নয়।” ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম (ননী) বলেন, “ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিগত দিনে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতৃবৃন্দদের কোন মূল্যায়ন না করার কারনে তাদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছেন, তাই বিএনপির নেতাদের নিয়ে শোক সভা করতে হয়। বিএনপির লোক আর সন্ত্রাসী নিয়ে শোক সভা করা,দুঃখজনক। এদের বিচার হওয়া উচিত।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনেহলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তালুকদার মোঃ শাজাহান বলেন, “জাকিরুল ইসলাম (আরিফ) আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান, তার বাবা আনেহলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। এবং বাকি দুইজনকে আমি এখন নামে চিনতেছি না।”

তবে এ বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগের দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে এবং ইতিমধ্যেই জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বইছে সমালোচনার ঝড়।