Logo
শিরোনাম
ভিপি রুবেলের পক্ষে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত -একাত্তরের কন্ঠ ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এস.এম রকিবুল হাসান (মানিক)। বেলায়েত হোসেনকে কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চান এলাকাবাসী। নির্মান প্রকৌশল শ্রমিক ইউনিয়নে টেলিভিশন প্রদান। আবারও সাবেক মেয়র মুক্তির জামিন ১৪ দফায় নামঞ্জুর মেয়রপ্রার্থী লিপুর পক্ষে ঘাটাইলে অটোরিকশা চালকদের শোডাউন। বানারীপাড়ায় অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ। পরিষদের কাজে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুমোদন নেবেন ইউএনও। ঘাটাইল রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস পরিদর্শনে কাজী আরজু।

মামলা করে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন ঘাটাইলের আমেনা বেওয়া

স্টাফ রিপোর্টারঃ টাঙ্গাইল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করে আসামিদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মোছাঃ আমেনা বেওয়া।

টাংগাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলার ধোপাজানী গ্রামের অসহায় আমেনা বেওয়া তার স্বামীর বসতবাড়ীতে ৪০ হাত টিনের একটি ছাপরা ঘর দিয়ে দশটি বিদ্যুুত চালিত সেলাই মেশিন স্থাপন করে দুটি কার্টার মেশিন দ্বারা দশ-পনের জন শ্রমিক দিয়ে তার পুত্র সোহেল রানা দি ইয়াং ফোর এন্টারপ্রাইজ নামে একটি গার্মেন্টস স্থাপন করেন। স্থানীয় কয়েক জন সন্ত্রাসী ওই গার্মেন্টসের পার্টনার হওয়ার জন্য প্রস্তাব দেন। সন্ত্রাসীদের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় কারনে সন্ত্রাসীরা রাতের আধারে সব মেশিন চুরি করে নিয়ে যায়। যাহার আনুমানিক মুল্যে সাত লক্ষ পঞ্চাশ হাজার (৭৫০০০০/-) টাকা । পরে তাদের বিরুদ্ধে ১/৬/২১ ইং তারিখে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন যাহার কোর্ট পিটিশন নাম্বার ২৬০/২১ ধারা দঃবিঃ ৪৪৮/৩২৩/৩৮০/৪২৭/৫০৬ আদালত মামলা আমলে নিয়ে ওসি ডিবি টাঙ্গাইলকে তদন্ত পুর্বক প্রতিবেদন দাখিল করা জন্য নির্দেশ প্রদার করেন। বিবাদীরা ধোপাজানি গ্রামের মৃত করিম পুলিশের ছেলে মোঃ মিঠু মিয়া, মোকাদ্দেছ আলীর ছেলে মোঃ ছন্টু ও মোঃ শফি। মৃত নাজিম উদ্দীনের ছেলে, মোঃ রুবেল , তারা মিয়ার ছেলে শিবা।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আমেনা বেওয়া অভিযোগ করে জানান, “আমি এক জন অসহায় ,আমার স্বামী বেঁচে নেই। আমার ছেলে সোহেল রানা গার্মেন্টসে চাকরি করত, গার্মেন্টসে চাকরী বাদ দিয়ে গ্রামে আইসা ছোট একটা গার্মেন্টস করেছিলো। সন্ত্রাসীদের ভয়ে আমার ছেলে পালিয়ে ব্যবসা করত। আমি বাড়িতে একা থাকি এ সুযোগে সন্ত্রাসী সব চুরি করে নিয়েছে । এখন সন্ত্রাসীরা আদালতের মামলা তুলে নিতে বলে, মামলা তুলে না নিলে প্রাণে মেরে ফেলবে বলে হুমকি ধামকী দিচ্ছে।
সন্ত্রাসীদের ভয়ে এখন আমেনা বেওয়া নিজ ঘর ছেরে আশ্রয় নিয়েছে আত্মীয় বাড়িতে, ভয়ে পারছেনা বাড়িতে ফিরে যেতে।