Logo
শিরোনাম
ভিপি রুবেলের পক্ষে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত -একাত্তরের কন্ঠ ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এস.এম রকিবুল হাসান (মানিক)। বেলায়েত হোসেনকে কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চান এলাকাবাসী। নির্মান প্রকৌশল শ্রমিক ইউনিয়নে টেলিভিশন প্রদান। আবারও সাবেক মেয়র মুক্তির জামিন ১৪ দফায় নামঞ্জুর মেয়রপ্রার্থী লিপুর পক্ষে ঘাটাইলে অটোরিকশা চালকদের শোডাউন। বানারীপাড়ায় অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে আইনি নোটিশ। পরিষদের কাজে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুমোদন নেবেন ইউএনও। ঘাটাইল রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস পরিদর্শনে কাজী আরজু।

ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মারধর ও মিথ্যা মামলা করার অভিযোগ।

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় ইউপি সদস্যের মারধর ও মিথ্যা মামলা করার অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলাধীন ৭ নং রাতোর ইউনিয়নের আটকরা গ্রামে। এ বিষয়ে রানীশংকৈল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, ৫ এপ্রিল সেলো মেশিনের সেচের পানি নেওয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাত্তার (৩৫), সাহেরুল (৪২), সাইফুল ইসলাম ( ৪০), সিরাজুল ইসলাম ( ৫৮) রাতোর ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য দবিরুল ইসলাম জিন্নাত (৫৫) এর নির্দেশে এনামুল হক ( ৫৫ ) কে বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যায়ে এনামুল হক কে তার পরিবারের লোকজন উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
বাসায় প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হলেও অবস্থার অবনতি হলে এনামুল হককে রাণীশংকৈল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে এনামুল হক রানীশংকৈল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী মোহসিন ও রাজু সহ কয়েকজন জানান, সেলো মেশিনের পানি নেওয়া কে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য দবিরুল ইসলাম জিন্নাতের নির্দেশে এনামুল হককে মারপিট করে এক পর্যায়ে তার পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

অভিযোগকারী এনামুল হকের ছেলে আব্দুল মতিন জানান, আমার বাবাকে তারা বেধড়ক মারপিট করেছে ।আমার বাবা বর্তমানে রানীশংকৈল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। উল্টো ইউপি সদস্য জিন্নাত আমাদের নামে থানায় সেলো মেশিন চুরির অভিযোগ করিয়েছে।আমরা প্রশাসনের নিকট এই মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদ ও আমার বাবাকে মারধরের বিচার দাবি করছি।

ইউপি সদস্য দবিরুল ইসলাম জিন্নাতের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন।

রানীশংকৈল থানা অফিসার ইনচার্জ এস এম জাহিদ ইকবাল মুঠোফোনে জানান, উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করেছে। এখন উভয়পক্ষের মতামতের ভিত্তিতে এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।